১৭ মার্চ, ২০১৫

অবশেষে পাওয়া গ্যালু আল্লার আরোশের সন্দান!

লিখেছেন শোভন

অবশেষে পাওয়া গ্যালু আল্লার আরোশের সন্দান! নাস্তেকরা, এইবার কুতাই পালাবি তুরা?!
আবু যর থেকে বর্ণিত:
আল্লার রসুল একদিন সূর্যাস্তের সময় আমাকে জিজ্ঞেস করলেন - তুমি কি জান অস্ত যাওয়ার পর সূর্য কোথায় যায়? আমি উত্তর দিলাম - আল্লাহ আর তার রসুল ভাল জানেন। তখন আল্লাহর রসুল বললেন - এটা চলতে থাকে যতক্ষণ না আল্লাহর সিংহাসনের নীচে পৌঁছে। সেখানে সে সিজদা দেয় আর আল্লাহর কাছে পুনরায় উদিত হওয়ার অনুমতি চায়। যতক্ষণ অনুমতি না দেয়া হয়, ততক্ষণ সে সেজদা দিতেই থাকে। পরে তাকে যেখানে সে উদিত হয়েছিল সেখানে ফিরে গিয়ে পুনরায় উদিত হওয়ার জন্য অনুমতি দেয়া হয়।
(বুখারী শরিফ, খন্ড-৪. বই-৫৪, হাদিস নং- ৪২১)
আর এটাই হলো আল্লাহর বাণী - সূর্য তার অক্ষপথে পরিভ্রমণ করে (কুরান ৩৬:৩৮) এর অর্থ। 

অবশেষে খুঁজ পাওয়া গেল আল্লাহর আরশের! এইবার কুতাই যাবি, নাস্তেকের দল? এইবার তো হাতেনাতে প্রমাণ ধরায়ে দেব, আল্লাহ আচেন! এই পবিত্র হাদিস গবেষণা করি আমি জাইনতে পারলাম, সূর্য যকন অস্ত যায়, সে তকন আল্লাহর আরশে থাকে, আবার পরের দিন সূর্যোদয় না হওয়া পর্যন্ত। 

মানে হইতেছে আমাদের দেশে আলো-টালো দেওয়া শ্যাষ হইলে সূর্য তাৎক্ষণাৎ রওনা করে মহান আল্লাহর আরশের উদ্দেশে। মাজ পতে সে একবার কাবা শরীফে সালাম জানাই যায়, সালাম জানাই যায় অন্যান্যু অনেক মুসলিম কান্ট্রিগের। তারপর সে যাইতে যাইতে যাইতে যাইতে অ্যামেরিকায় গিয়ে থামে। তারপর ফুশ করি কই যে ডুবি যায়, কেউ জানে না! 

আবার আমাদের দ্যাশে সূর্যোদয় না হওয়া পর্যন্ত ওইহানেই অবস্থান করি মহান আল্লাহর অনুমতির প্রার্তনা করে। তারপর হঠাৎ সকাল বেলা আল্লাহর অনুমুতি পাইলেই ফুসসসস করি উঠি পরে আমাদের দ্যাশে! 

ইয়া মাবুদ, শেষ পর্যন্ত তুমার দ্যাখা পাই গেলাম! তুমি ওই অ্যামেরিকার মত দ্যাশেই আরোশ পাতি বসি থাকবা, সেইটা আমি অনেক আগেই জানতাম! তুমার দয়াতেই তো ওই দ্যাশের ইহুদি-নাসারারা এত্ত এত্ত উন্নুতি কইত্তেসে। হে আল্লাহ, আমি আমার সাতে একদল বিজ্ঞানী ও অনুসন্ধানী টিম নিয়ে যাবো অ্যামেরিকায়! তুমার আরোশ খুজি বাইর কইরে এইসকল নাস্তেকদের নাস্তেকতা শিক্কা দিই দেব ইনশাল্লাহ! তুমি আমাকে তৌফিক দান কর। সবাই কমেন্ট করেন আমিন।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন