৪ জুন, ২০১৫

খুনি, ধর্ষক, ডাকাতেরা বাঙালি মুসলমানের বীর

লিখেছেন জুলিয়াস সিজার

আইএস জঙ্গিরা ইরাক এবং সিরিয়ার কয়েকটা শহরে ইয়াজিদি এবং খ্রিষ্টান মেয়েদের যৌনদাসী হিসেবে বিক্রি করছে। বয়স অনুযায়ী তারা ঐ মেয়েদের দামও ঠিক করে দিয়েছে। যেমন কম বয়সের হলে দাম বেশি আর বেশি বয়সের হলে দাম একটু কম।

এবার দুটো বিষয় খেয়াল করুন:

১. যে মেয়েদের যৌনদাসী হিসেবে বিক্রি করছে, তারা সবাই অমুসলিম। কোনো মুসলিম মেয়েকে আইএস জঙ্গিরা যৌনদাসী হিসেবে বিক্রি করছে না।

তবুও খচ্চর মডারেট মুসলিমেরা বলে আইএস জঙ্গিরা মুসলিম না! তাহলে মুসলিম মেয়েদের প্রতি তাদের শ্রদ্ধা আর অমুসলিমদের প্রতি ঘৃণা কেন?
‎উত্তর‬: অমুসলিমেরা সেই চিরকালীন গনিমতের মাল।

২. আইএস জঙ্গিরা খারাপ! ঠিক আছে মেনে নিলাম। কিন্তু জঙ্গিরা বাজারে মেয়েদের দাসী হিসেবে বিক্রি করছে, তাদের কিনছে কারা? নিশ্চয় সেখানকার সাধারণ মডারেট মুসলমানেরা। বাজারে চাহিদা আছে বলেই তো তারা বিক্রি করছে। কেউ না কিনলে নিশ্চয় বিক্রি করত না।

আইএস-এর জিহাদের সুফল সেখানকার মুসলমানেরা ভোগ করছে সুলভ মূল্যে অমুসলিম নারীদের যৌনদাসী হিসেবে কিনে। যদি আইএস হেরে যেত, তাহলে নাক সিঁটকিয়ে বলতো - ইহা সহী ইসলাম নয়!

এবার বাংলাদেশে আসুন। মনে করুন, আজ থেকে ৩০ বছর পর আইএস জঙ্গিরা বাংলাদেশ দখলে নিল। তখন গনিমতের মাল হবে কারা আর বাজারের যৌনদাসী হিসেবে বিক্রি করা হবে কাদের?
উত্তর: আমরা যারা অমুসলিম আছি, তাদের মা-বোনদের।

- কিনবে কারা?
উত্তর: আজকের মডারেট মুসলিম, যারা বলে, ইহা সহী ইসলাম নয়।

তখন আইএস হয়ে যাবে ইসলামের বীর আর বাংলাদেশের তথাকথিত সাধারণ মুসলমানেরা হবে তাদের পূজারি। উদাহরণ দেখতে চান?

- বখতিয়ার খিলজির মতো ডাকাতকে বাংলাদেশে ইতিহাস পড়ানো হয় মহান ইসলামী বীর হিসেবে, যে হাজার হাজার বৌদ্ধ ভিক্ষুকে খুন করেছিল, নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয় ধ্বংস করেছিল, হাজার হিন্দু-বৌদ্ধ মেয়ে ধর্ষণ করেছিল।

- আমদের ইতিহাসে পড়ানো হয়, গজনীর সুলতান মাহমুদ ১৭ বার ভারত অভিযান চালিয়েছিলেন।

কী অভিযান চালানো হয়েছিল? কিসের অভিযান? ভারতীয়রা কি সুলতান মাহমুদকে আক্রমণ করেছিল যে, সুলতান মাহমুদ প্রতিশোধের জন্য ভারত আক্রমণ করেছিল?

সত্যটা হচ্ছে - সুলতান মাহমুদ ১৭ বার ভারত আক্রমণ করে লুটপাট, খুন, ধর্ষণ আর ডাকাতি করেছিল।

সুলতান মাহমুদ, বখতিয়ার খিলজির মতো খুনি, ধর্ষক, ডাকাতেরা আজ বাঙালি মুসলমানের কাছে বীর! একদিন আইএস-ও বীর হবে। জঙ্গি মুসলমানের চেয়ে মডারেট মুসলমানেরা ভয়ানক। কারণ জঙ্গিদের আপনি জানেন, তারা কত বর্বর।

বন্ধুরূপী মডারেট মুসলমানদের বর্বরতা আপনারা যেদিন দেখবেন, সেদিন আপনি নিজে হয়ে যাবেন কোনো বাজারের যৌনদাসী আর আর আপনার বন্ধু মডারেট মুসলমানটি হবে আপনার ক্রেতা।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন