২৮ জুন, ২০১৫

ইছলামী ইতরামি

১.
রমজান মাসে আল্যা শয়তানকে শেকল দিয়ে বেঁধে রাখে বলে এই মাসে সংঘটিত সমস্ত অপকর্মের দায় নিশ্চয়ই আল্যাফাকের। পবিত্র রমজানের এক শুক্রবারেই মুছলিমদের হাতে নিহত হয়েছে কমপক্ষে ২৫০ জন! আর রমজান মাসের প্রথম ১০ দিনে মুছলিমরা হত্যা করেছে মাত্র ৯৩৩ জনকে - গড়ে দিনে প্রায় ১০০ জন। এই সময়ে অন্য কোনও ধর্মের নামে একটি হত্যাকাণ্ডও সংঘটিত হয়নি।

২.
সমুদ্রসৈকতে হামলা চালিয়ে কমপক্ষে ৩৬ জনকে হত্যা করেছে ইছলামী জঙ্গিরা। ঘটনা তিউনিসিয়ায়।

৩.
কোরানে আছে সন্ত্রাসের বীজ, আর সন্ত্রাসের চাষ হয় মসজিদে। মুছলিম দেশ তিউনিসিয়ার সরকারও সেটা উপলব্ধি করেছে - সে দেশের ৮০টি মসজিদ বন্ধ করে দেয়া হবে। 

৪. 
আইসিস আয়োজিত কোরান মুখস্থ করার প্রতিযোগিতায় বিজয়ীরা পুরস্কার হিসেবে পাবে শিশু-যৌনদাসীদের, যাদের সর্বনিম্ন বয়স নয়। যৌনদাসী ভোগ ইছলামে সম্পূর্ণ হালাল ও নবীজির সুন্নত।

৫.
ইছলামে জোরজরদস্তির স্থান নেই। রোজা ভাঙার কারণে তাই দুই কিশোরের ফাঁসি দিয়েছে আইসিস।

৬.

৭.
মানবহত্যাকে শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া বৈচিত্র্যপিয়াসী আইসিস এবারে ৫ জনকে খাঁচায় পুরে পানিতে ডুবিয়ে হত্যা করেছে।

৮.

৯. 
মুছলিম ভ্রাতৃত্বের আরেকটি নিদর্শন: কুয়েতে জুম্মার দিনে শিয়া মসজিদে বোমা হামলায় ২৭ জন নিহত। বিশ্বব্যাপী ইছলামী সন্ত্রাবাদের পেছনে সক্রিয় অর্থদাতা দেশগুলোতেই এবার শুরু হয়েছে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড।

১০.
মুছলিমদের কেউ কেউ সক্রিয় জঙ্গি, কেউ সহায়তাকারী, আর বাদবাকিদের অধিকাংশই প্রত্যক্ষ সমর্থন শোভন নয় বলে নীরব সমর্থক। জঙ্গি দলকে রাসায়নিক সরবরাহের অভিযোগে চারজন দেশী ছহীহ মুছলিমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

১১.
ইহুদি-নাছারাদের দেশে গিয়ে ইছলামী পোশাক পরার অধিকারের দাবিতে গলা ফাটানো মুছলিমরা তাদের দেশে ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের নির্দেশ দেয় ছহীহসম্মত পোশাক পরিধানের। ঘটনা মালয়েশিয়ায়।

১২.
যেহেতু মুছলিম-মুছলিম ভাই-ভাই, তাই মুসলিম জঙ্গি মুছলিম জঙ্গিও ভাই-ভাই হবার কথা! অথচ আইসিস-এর জঙ্গিরা আল-কায়েদার ১২ জঙ্গির শিরশ্ছেদ করলো। গঠনা কী?

১৩.
মুছলিমের সন্তান অমুছলিম হলে তার কল্লা নামিয়ে দেয়া পিতার ঈমানী দায়িত্ব। তেমন ইচ্ছাই পোষণ করেছে এক মুছলিম পিতা।

১৪.
৯ বছর বয়সের মেয়েকে শয্যাসঙ্গী বানানো নবীজির সুন্নত। আইসিস নবীজির পদাঙ্কই অনুসরণ করছে।

১৫.
আমেরিকার প্রথম স্বঘোষিত সমকামী ইমামের কাহিনী আল জাজিরার রিপোর্টে।

১৬.
অপহৃত দুই বালিকাকে আত্মঘাতী বোমারু হিসেবে ব্যবহার করে ইছলামী জঙ্গি দল বোকো হারাম হত্যা করেছে ৩০ জনকে

১৭.
জঙ্গিরাও সাধারণ মুছলিম। ফরাসী জিহাদীর স্ত্রী বলেছে, "আমরা সাধারণ মুছলিম। আমরা রমজান পালন করি।"

১৮.
শিশু-কিশোরদের জঙ্গি হিসেবে গড়ে তুলতে কী অমানবিক প্রক্রিয়ায় প্রশিক্ষণ দিচ্ছে আইসিস, তার সচিত্র রিপোর্ট।

১৯.
গনিমতের হালাল মালকে ইছলামসম্মত বিধি মেনে ধর্ষণ করে আইসিস-এর মুছলিম জঙ্গিরা এইডস-আক্রান্ত হয়েছে! আল্যার এ কী অবিচার!

২০.
ইছলামত্যাগী এক নারীকে বিষ খাইয়েছে তার শ্বশুরপক্ষের লোকজন।

২১.
ইহুদি-নাছারাদের দেশে বাস করা হালাল, সেখানকার কুফরী বাতাসে নিঃশ্বাস নেয়াও হালাল, তাদের দেয়া সমস্ত সুযোগ-সুবিধা ভোগ করা হালাল, কিন্তু চিকিৎসার সময় তাদের দান করা অঙ্গ ব্যবহার করা হারাম! হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাই মুছলিমদের আহ্বান জানিয়েছে অঙ্গদান করার। এর আগে এক মুছলিমকে নিঃস্বার্থভাবে অঙ্গদান করেছিলেন এক হিন্দু মহিলা। কিন্তু পরে তাঁকে সেই মুছলিমের গালিগালাজ কটুকাটব্য হজম করতে হয়েছিল। ইহাকে বলে ইছলামী কৃতজ্ঞতা।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন