১৪ মার্চ, ২০১৭

ইমানুলের ধর্মকথা - ১

লিখেছেন ইমানুল হক

০১.
সেদিন ছিল জুম্মাবার। তহন ক্ষেতের কাম থুইয়া আইছি বাড়ি, নামাজে যাওনের লাই। কলে এক ফোডাও পানি নাই। কী করি, যামু নামাযে আল্লা-বিল্লা করতে, খাইলাম বাধা। নদীর ময়লা পানিতে কোনোমতে ডুব দি হরবরাইয়া আইছি ঘরে। দেহি বিবি এহনও রান্নাবান্না কিছুই করে নাই। মেজাজ উঠল চরমে। আল্লার নাম নি শুরু করলাম পিডানি, সুন্নত পালন করি পরে যামুনে মসজিদে। বিবি চিক্কার পাড়া শুরু করল, এইদিকে দেহি দেরি হই যাচ্ছে। বউরে ছাইড়া দিয়া কইলাম, "নামাজের পর তরে দেহাইতেছি বান্দির ঘরে বান্দি। এমনেই কয় না, নারী কুকুরের সমতুল্য। (তারা কুকুরের সমতুল্য (Sahih Bukhari 1:9:490, 1:9:493, 1:9:486 Sahih Muslim 4:1032, 4:1034, 4:1038-39 Abu Dawud 2:704)। এই কইয়া বিবিরে বকতে বকতে তাড়াতাড়ি নামাজের জন্য মসজিদের উদ্দেশে রওনা হইলাম। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন, আমি যেন আল্লার খেদমত সারা জীবন করবার পারি।

০২.
মনডা বিশেষ বালা নাই। রাইতে বালা গুম হয় নাই। স্বপ্ন দেখতে দেখতে হঠাৎ জেগে উঠছি। বিবি পাশেই চিক্কার পাইড়া উইঠ্যা গেছে।

আল্লা যে ক্যান আমারে এইরাম স্বপ্ন দেহাইলো - আমি সৌদী যাইতেছি হজ্ব করতে। প্লেনে উঠছি, নামাযও পড়নের টাইম হইছে। এহন একজনরে জিজ্ঞাসা কইরা নামাযের রুমে গেছি। নামাজ পড়া শুরু করমু ঠিক সেই মুহুর্তে এক শয়তান আইয়া দিল বাগড়া। কয় "আপনি আছেন আকাশের উপরে। কাবাঘর তো নিচে, এখন কি তাইলে নিচে তাকাই নামাজ পড়বেন?"

আমি তো চিন্তায় পড়ি গেলাম। মনে মনে বিড়বিড় করে বইল্লাম, আল্লা আমারে কি পরিক্কায় ফেল্যা? অতঃপর কোনো যুক্তি খুঁজি না পাই কইলাম, "শয়তানের বাচ্চা শয়তান, আল্লা কইচছে, শয়তান মুমিন বান্দার ১০০ হাত দূরে থাকবে। আমারে আইছস ধোঁকা দিতে, তরে আজ খাইছি।" এই না কইয়া লাগাইছি গুসি, এরপর দেহি বিবি চিক্কার মাইরা খাডের উপর থেইক্ক্যা নিচে পড়ি গেছে আর চিল্যাইয়া কইতাছে, "আল্লারে, আমারে মাইরা লাইলো রে।"

আমি তো পুরাই বুদাই হই গেলাম। বইল্লাম, শয়তানডা কই গেল! আয় হায় হায়! এইডা আমি কী কইল্লাম! আল্লা তুমি আমাক শতানের কাছ থেইক্কা মুক্ত কর আর ছহি ছালামতে চলার তৌফিক দান কর। আমেন।

এরপর বিবিরে তেলমালিশ কইত্তে থাকলাম। আর বিবিরে আদর করে কইলাম, তেল মালিশের কতা অন্য বিবিরে না কইতে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন