১ মে, ২০১৭

খিলাফতের স্বপ্ন

লিখেছেন পুতুল হক

মুসলমান যদি মনে করে, তাদের আল্লাহ দোজাহানের মালিক, তো তারা সে বিশ্বাস নিয়েই থাকুক। আল্লাহ প্রতিটি মুসলমানের অন্তরে বসত করুক। কিন্তু রাষ্ট্রের গদির দিকে আল্লাহর নজর যায় কেন? আল্লাহর কি আরশ ভালো লাগে না? তারই তৈরি পৃথিবীতে তাকে গদি দখল করতে হবে?

অধিকাংশ মুসলমানদের মনের মসনদের রাজা সৌদি বাদশাহ্। অকার্যকর একটা খিলাফত চালাচ্ছে সৌদি আরব। আর একটি খিলাফত ইসলামিক স্টেট - আইসিস। বিশ্ববাসী মেনে নিক আর না নিক, এক খণ্ড মানচিত্রের নাম ইসলামী স্টেট। 

তাদের রাজধানী আছে, শাসনতন্ত্র আছে, সৈন্যবাহিনী আছে, রাষ্ট্রের কাজ পরিচালনার জন্য লোকবল আছে। সৌদি আরব যতদিন ইসলামিক স্টেটকে চ্যালেঞ্জ মনে করেনি ততদিন এদের বিরুদ্ধে কিছু বলেনি। যখন দেখলো, আইসিস তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী আর একটি খিলাফতের প্রতিষ্ঠা করেছে, তখনই তারা কেবল আইসিস-এর বিরুদ্ধে দাড়িয়েছে।

সোনার কমোডে মল ত্যাগ করা সৌদি বাদশাহ্ অনেক মুসলমানকে আশাহত করেছে। কারণ মুসলমান নখদন্তহীন কোনো খিলাফত চায় না। তাদের মনের আশা - আল্লাহর প্রতিশ্রুত খিলাফত। সারা পৃথিবীর ওপর যাদের কর্তৃত্ব থাকবে। পশ্চিমা শক্তি হয়তো ভেবেছিল, তাঁদের পরিকল্পনা মাফিক আইসিস-কে কাজে লাগানো হবে। কিন্তু তাদের পরিকল্পনা যে সঠিক ছিল না, সেটাও প্রমাণিত।

খিলাফত যে মুমিনের অন্তরে। জলকাদার মানুষ বাংলাদেশের মুসলমানের মনেও খিলাফতের স্বপ্ন আছে। 

মুসলমান হয়তো এমন একটি শক্তির জন্য এতোদিন অপেক্ষা করে ছিল, যারা বিধর্মীদের শুধুমাত্র বিধর্মী হবার কারণে খুন করতে পারবে, বিধর্মীদের কাছ থেকে জিজিয়া আদায় করতে পারবে। আইসিস সাচ্চা মুসলমানের বাচ্চা। এখন ‘আল্লাহু আকবর’ ধ্বনি সত্যিকারে বিধর্মীদের মনে কাঁপন ধরায়। 

মুসলমানের শক্তি তো এমনই হবার কথা ছিল।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন